কোম্পানীগঞ্জে সংঘর্ষ: ৬৪৪ জনের বিরুদ্ধে বাদলের মামলা, আসামি নন কাদের মির্জা

95

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষ, পাল্টাপাল্টি ধাওয়া ও গুলি বিনিময়ের ঘটনায় ৬৪৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদল।

মামলায় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের ভাই এবং বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জাকে আসামি করা হয়নি।

গতকাল শনিবার রাতে কোম্পানীগঞ্জ থানায় বাদল এই মামলা করেন বলে নিশ্চিত করেছেন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মীর জাহিদুল হক রনি।

থানা সূত্র জানায়, আওয়ামী লীগ নেতা ও ৫ নং চরফকিরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জামাল উদ্দিন লিটকে প্রধান আসামি করে ৪৪ জনের নাম উল্লেখ এবং অজ্ঞাত পরিচয় ৬০০ ব্যক্তির বিরুদ্ধে এ মামলা হয়েছে।

তবে এখন পর্যন্ত কোনো আসামি গ্রেপ্তার হয়নি।

গত শুক্রবার বিকেলে উপজেলার চাপরাশিরহাট বাজারে মিজানুর রহমান বাদল ও কাদের মির্জার সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষে ৯ জন গুলিবিদ্ধসহ অর্ধশতাধিক মানুষ আহত হয়। গুলিবিদ্ধ সাংবাদিক বার্তা বাজারের প্রতিনিধি বুরহান উদ্দিন মুজাক্কির গতকাল ঢাকা মেডিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

নোয়াখালী পুলিশ সুপার মো. আলমগীর হোসেন বলেন, মিজানুর রহমান বাদলের করা মামলাটি নথিভূক্ত করা হয়েছে। মামলায় যাদেরকে আসামি করা হয়েছে তারা প্রকৃত অপরাধী কিনা তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। এজাহারভুক্ত ব্যক্তিরা ঘটনার সঙ্গে  জড়িত থাকার প্রমাণ পেলে আইনের আওতায় আনা হবে। নিরপরাধ কোন ব্যক্তিকে পুলিশ হয়রানি করবে না।