ব্রেকিং নিউজ-বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূতকে হুঁশিয়ারি মা’র্কিন প্রেসিডেন্ট

11012

যু’ক্তরাষ্ট্রে নিযু’ক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত সহিদুল ই’স’লা’মের পরিচয়পত্র দেশটির প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন আনুষ্ঠানিকভাবে গ্রহণ করেছেন। এসময় বাংলাদেশের সঙ্গে আরও সুগভীর স’ম্প’র্কের আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন মা’র্কিন প্রেসিডেন্ট।ওয়াশিংটন ডিসির বাংলাদেশ দূতাবাস এক সংবাদ বি’জ্ঞ’প্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে।

গত ১৭ ফেব্রুয়ারি মা’র্কিন প্রেসিডেন্ট বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূতের আনুষ্ঠানিক গ্রহণপত্রে স্বাক্ষর করেন। সেখানে তিনি রাষ্ট্রদূতকে যু’ক্তরাষ্ট্রে স্বাগত জানান।এতে বাংলাদেশের সঙ্গে যু’ক্তরাষ্ট্রের বিদ্যমান বন্ধুত্বপূর্ণ স’ম্প’র্ককে আরও সুগভীর করতে একযোগে কাজ করার বিষয়ে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

উল্লেখ্য, ক’রো’না মহামা’রি পরিস্থিতির কারণে এবার রাষ্ট্রদূত সহিদুল ই’স’লা’মের পরিচয়পত্র প্রদানে আনুষ্ঠানিক আয়োজন করা হয়নি। পরিচয়পত্র গ্রহণের বিষয়টি ‘পেপার-বেইজড’ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে সম্পন্ন করা হয়।

উত্তাল মিয়ানমা’র, পু’লিশের গু’লিতে নি’হ’ত ২
মিয়ানমা’রের মান্ডালে শহরে শনিবার পু’লিশের গু’লিতে অন্তত দু’জন বি’ক্ষো’ভকারী নি’হ’ত হয়েছেন। এছাড়া আ’হত হয়েছেন অন্তত ২০ জন। খবর এএফপির।শহরের জরুরি সেবাদানকারী সংস্থা পারাহিতা দারহির স্বেদ্ধাসেবী কো অং এএফপিকে বলেন, ‘২০ জন আ’হত হয়েছেন ও দু’জন মা’রা গেছেন।’

মান্ডালেতে পু’লিশের সঙ্গে সং’ঘ’র্ষে বি’ক্ষো’ভকারীরা ইটপাট’কেল ছোড়ে। জবাবে পু’লিশ টিয়ার গ্যাস ছোড়ে ও গু’লি চালায়। তবে এটি রাবার বুলেট নাকি লাইভ রাউন্ড গু’লি তা এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি।ভ’য়েস অব মিয়ানমা’রের সহকারী সম্পাদক লিন খাইয়াংসহ একাধিক গণমাধ্যম কর্মী জানিয়েছেন, মা’থায় গু’লিবিদ্ধ হয়ে একজন মা’রা গেছেন।

এক স্বেচ্ছাসেবী চিকিৎসক দু’জন মৃ’ত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ‘একজন মা’থায় গু’লিবিদ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলেই মা’রা যান। আরেকজন বুকে গু’লিবিদ্ধ হওয়ার কিছুক্ষণ পরে মা’রা যান।এ বিষয়ে পু’লিশের পক্ষ থেকে এখনো কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

গত ১ ফেব্রুয়ারি মিয়ানমা’রের সাম’রিক বাহিনী এক অভ্যুত্থানের পর ক্ষমতাসীন দল এনএলডি’র নেতা অং সান সু চি ও সরকারের মন্ত্রীদের আ’ট’ক করে। এর কয়েকদিন পর থেকেই হাজার হাজার জনতা সাম’রিক জান্তা সরকারের বি’রু’দ্ধে দেশটির বিভিন্ন রাস্তায় বি’ক্ষো’ভ শুরু করে।

অভ্যুত্থানের পর থেকে শত শত বি’ক্ষো’ভকারীকে আ’ট’ক করেছে পু’লিশ। এদের মধ্যে অনেকেই আছেন সরকারী কর্মক’র্তা ও কর্মচারী যারা ধ’র্মঘটের ডাক দিয়ে কাজে ইস্তফা দিয়েছেন।শনিবার মিয়ানমা’রের কয়েকটি শহরে জাতিগত সংখ্যালঘু, কবি, পরিবহন শ্রমিকসহ সর্বস্তরের জনতা রাস্তায় বি’ক্ষো’ভ করে। সে’নাবাহিনীকে ক্ষমতা ছাড়তে ও সু চিকে মুক্তি দেয়ার দাবি জানায় তারা।

উল্লেখ্য, মিয়ানমা’রে সে’নাবিরোধী এক বি’ক্ষো’ভকারী গতকাল মা’রা গেছেন। পু’লিশের গু’লিতে আ’হত হয়ে গত ১০ দিন ধরে হাসপাতা’লে মৃ’ত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা ল’ড়ছিলেন তিনি। শুক্রবার মিয়া থোয়ে থোয়ে খাইন নামে সদ্য ২০ পেরোনো ওই তরুণী মা’রা যান। অভ্যুত্থানবিরোধী বি’ক্ষো’ভে এটিই ছিল প্রথম মৃ’ত্যুর ঘটনা।শনিবার ইয়াঙ্গুনে খাইনের জন্য স্ম’রণসভা’র আয়োজন করেন বি’ক্ষো’ভকারীরা। নেপিডোতেও একইরকম কর্মসূচী পালিত হয়েছে।