আইপিএলে সবচেয়ে বেশি দাম পাচ্ছেন যারা

137

আইপিএলকে বলা হয় কাড়ি কাড়ি টাকার উৎস। বিখ্যাতদের পাশাপাশি অখ্যাতদেরও প্রচুর অর্থ আয়ের সুযোগ থাকে ভা’রতীয় এই আসরে। এবারের খেলোয়াড় নিলামেও দেখা গেছে তেমনটাই। বেশ কয়েকজন ক্রিকেটারের দাম শুনলে যে কারোই চোখ কপালে উঠতে বাধ্য।এবারের আসরে সবচেয়ে বেশি দামে বিক্রি হওয়া ৫ ক্রিকেটার

ক্রিস ম’রিস: চলমান নিলামে এখন পর্যন্ত সর্বাধিক দামে বিক্রিত হয়েছেন দক্ষিণ আফ্রিকার অলরাউন্ডার ক্রিস ম’রিস। যার ভিত্তিমূল্য ছিল ৭৫ লাখ রুপি তাকেই ১৬ কোটি ২৫ লাখ রুপিতে কিনেছে রাজস্থান রয়্যালস। আইপিএল ইতিহাসে যেটি রেকর্ড। এর আগে ২০১৫ সালে সর্বাধিক ১৬ কোটি রুপিতে সাবেক ভা’রতীয় অলরাউন্ডার যুবরাজ সিংকে কিনেছিল দিল্লী। এবার তাকেও ছাড়িয়ে গেলেন ৩৩ বছর বয়সী ম’রিস।

কাইল জেমিয়েসন: নিউজিল্যান্ডের এই পেসার আন্তর্জাতিক ক্রিকে’টে এখনো জায়গা পোক্ত করতে পারেননি। তবে ঠিকই নজর কেড়েছেন আইপিএলের মালিকদের! ৭৫ লাখ ভিত্তিমূল্যের জেমিয়েসনকে ১৫ কোটি রুপিতে কিনে নিয়েছে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরু।

গ্লেন ম্যাক্সওয়েল: এবারের আসরের তৃতীয় দামি ক্রিকেটারটিকেও কিনে নিয়েছে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরু। অজি তারকা গ্লেন ম্যাক্সওয়েলকে ১৪.২৫ কোটি রুপিতে কিনে নিয়েছে তারা। তার ভিত্তিমূল্য ছিল ২ কোটি রুপি।

ঝাই রিচার্ডসন: অস্ট্রেলিয়ার এই পেসারও আন্তর্জাতিক ক্রিকে’টে এখনো সেভাবে পরিচিত হয়ে উঠেননি। তবে তাকেও চড়ামূল্যে কিনেছে পাঞ্জাব সুপার কিংস। ১ কোটি ভিত্তিমূল্যের রিচার্ডসনকে কিনতে প্রীতি জিনতারা ব্যয় করেছেন ১৪ কোটি রুপি!

কৃষ্ণাপ্পা গৌতম: ভা’রতীয় এই ক্রিকেটার একেবারেই অ’পরিচিত। ভিত্তিমূল্য ছিল মাত্র ২০ লাখ রুপি। তবে তাকে নিয়েই কাড়াকাড়ি শুরু করে দেয় বেশ কয়েকটি ফ্র্যাঞ্চাইজি। শেষমেশ ৯ কোটি ২৫ লাখ রুপিতে তাকে দলে ভেড়ায় চেন্নাই সুপার কিংস।

এছাড়া অস্ট্রেলিয়ার অখ্যাত পেসার রাইলি মে’রেডিথকে ৮ কোটি রুপিতে কিনেছে পাঞ্জাব। ইংলিশ অলরাউন্ডার মঈন আলীর জন্য চেন্নাই খরচ করছে ৭ কোটি রুপি।
এদিকে টাকার এমন ছড়াছড়ির বিপরীতে এবারের নিলামে অবিক্রিত রয়ে গেছেন জেসন রয়, অ্যালেক্স হেলস, অ্যারন ফিঞ্চ, মা’র্টিন গাপটিল, শন মা’র্শ, কোরি অ্যান্ডারসন, এভিন লুইসের মতো বিশ্ব তারকারা।