চো’র সন্দেহে মাদ্রাসা শি’ক্ষার্থী হ’ত্যা: রাজপথে মা-বাবা

91

যশোরের মণিরামপুর উপজে’লার খোজালিপুর গ্রামের মাদ্রাসা ছাত্র মামুন হাসানকে (২২) হ’ত্যার মূ’ল পরিকল্পনাকারী সিরাজ, আনিছুর মেম্বর, ফাকসহ জ’ড়িতদেরর ফাঁ’সির দাবিতে মা’নববন্ধ’ন ও বি’ক্ষো’ভ মিছিল করেছে গ্রামবাসী।

শুক্রবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১১টার দিকে স্থানীয় কদমবাড়িয়া ভাটার সামনে এ মা’নববন্ধ’ন কর্মসূচি পালন করা হয়। ওই মা’নববন্ধ’নে অংশ নেন নি’হত শিক্ষার্থীর মা ছকিনা বেগম, পিতা মশিয়ার রহমান ও বোন লিমা খাতুন।

গত ১৬ ফেব্রুয়ারি রাত ১১ টা থেকে তিনটা পর্যন্ত উপজে’লার খোজালিপুর গ্রামের মাঝের পাড়ায় মামুনকে হাত-পা বেঁ’ধে নি’র্মমভাবে নি’র্যাতন করেন একই এলাকার সিরাজ, আনিছুর মেম্বর, ফারুক, লাভলু, সোহাগ, আলতাফসহ অনেকে। মোবাইল ফোন চোর স’ন্দে’হে তাকে প্রায় চার ঘণ্টা নি’র্যাতন করে মুমূর্ষু অবস্থায় ফে’লে রাখা হয়। মামুনকে উ’দ্ধার করে হাসপাতালে নিতে চাইলে বা’ধা দেন স্থানীয় ইউপি সদস্য আনিছুর রহমান।

পরদিন সকালে পু’লিশ নিয়ে ছেলেকে উ’দ্ধার করে মণিরামপুর হাসপাতালে ভর্তি করেন মা ছকিনা বেগম। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিকেলে মা’রা যান মামুন। এ ঘ’টনায় মা’মলার পর থেকে প’লাতক রয়েছে সিরাজ, আনিছুর মেম্বারসহ অন্যরা। তাদের আ’টকের দাবিতেই গ্রামবাসী এ মা’নববন্ধ’নের আয়োজন করে।

ছেলের খু’নের বিচারের দাবি সম্বলিত ফেস্টুন হাতে ধরে মানবন্ধ’নে অংশ নেন পিতা মশিয়ার রহমান, ছকিনা বেগম।এসময় মশিয়ার রহমান বলেন, আমার ছেলেরে ওরা ডেকে নিয়ে মে’রে ফে’লেছে। খু’নিদের বিচার চাই। ঘন্টাব্যাপী মা’নববন্ধ’নে এলাকার সহস্রাধিক না’রী, পুরু’ষ, শি’শু ও মামুনের সহপাঠীরা অংশ নেন। মা’নববন্ধ’ন শেষে একটি বি’ক্ষো’ভ মিছিলও করেন তারা।

তাজউদ্দীন চরিত্রে রিয়াজ, বাদ পড়েছেন ফেরদৌস
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবনীনির্ভর চলচ্চিত্র ‘বঙ্গবন্ধু’র শুটিং চলছে মুম্বাইয়ে। সিনেমাটিতে তাজউদ্দীন আহম’দের চরিত্রে অ’ভিনয়ের কথা ছিল অ’ভিনেতা ফেরদৌসের।কিন্তু বৃহস্পতিবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) জানানো হলো, তাজউদ্দীন আহম’দের চরিত্রে ফেরদৌস নয়, অ’ভিনয় করছেন রিয়াজ। ইতোমধ্যে রিয়াজ মুম্বাইয়ে ছবিটিতে শুটিংয়ে অংশ নিয়ে ঢাকায় ফিরেছেন।

বি’ষয়টি জানিয়েছেন ‘বঙ্গবন্ধু’ সিনেমা’র বাংলাদেশ অংশের লাইন প্র’ডিউসার ও নির্মাতা মোহাম্ম’দ হোসেন জেমী। তিনি বলেন, ‘ফেরদৌসের পরিবর্তে তাজউদ্দীন আহম’দ সাহেবের চরিত্রে অ’ভিনয় করছেন রিয়াজ। তিনি ক’দিন আগে শুটিংয়ে অংশ নিতে মুম্বাইয়ে গিয়েছিলেন। আবার ফিরেও এসেছেন। আবার কয়েকবার যাবেন। মূ’লত শুটিংয়ের জন্য যাওয়া আসার মধ্যেই থাকতে হবে। ‘

এর আগে ভা’রতের লোকসভা নির্বাচনে রাজনৈতিক দল তৃণমূ’ল কংগ্রেসের পক্ষে প্রচারে অংশ নেওয়ায় ফেরদৌসের ভিসা বাতিল করে ভা’রত স’রকার। এ জন্য দেশটির স্ব’রা’ষ্ট্র ম’ন্ত্রণালয় তাকে কালো তালিকাভুক্ত করে বলে সে সময় খবর প্রকাশিত হয়।

আ’লো’চি’ত এই বায়োপিকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের চরিত্রে আরিফিন শুভ, শেখ হাসিনার চরিত্রে নুসরাত ফারিয়া, শেখ রেহা’নার চরিত্রে সাবিলা নূর ছাড়াও বঙ্গবন্ধুর মা শেখ সায়েরা খাতুনের চরিত্রে অ’ভিনয় করবেন দিলারা জামান এবং হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী চরিত্রে থাকবেন তৌকীর আহমেদ।

এ ছাড়া, উল্লেখযোগ্য চরিত্রে অ’ভিনয় করছেন খন্দকার মোশতাকের ভূমিকায় ফজলুর রহমান বাবু, খায়রুল আলম সবুজ অ’ভিনয় করবেন বঙ্গবন্ধুর বাবা লুৎফর রহমানের চরিত্রে, এ কে ফজলুল হকের চরিত্রে দেখা যাবে শহীদুল আলম সাচ্চুকে, আবদুল হামিদ খান ভাসানী চরিত্রে অ’ভিনয় করবেন রাইসুল ই’স’লা’ম আসাদ, ছোট রেণু হবেন দীঘি, বড় রেণুর চরিত্রে তিশা।

তাজউদ্দীন আহম’দ ছিলেন বাংলাদেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী ও স্বাধীনতাসংগ্রামের অন্যতম নেতা। ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মুক্তিযু’দ্ধের সময় বাংলাদেশ স’রকারের প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব অ’ত্যন্ত দক্ষ’তা ও সফলতার স’ঙ্গে পালন করেন। স্বাধীনতা-পরবর্তীকালে তিনি বাংলাদেশের অর্থমন্ত্রী হিসেবে ১৯৭৪ সাল পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন।

১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সপরিবারে নি’হ’ত হওয়ার পর আরো তিনজন জাতীয় নেতাসহ তাকে ব’ন্দি করে ঢাকা কেন্দ্রীয় কা’রাগারে রাখা হয়। সেখানেই ১৯৭৫ সালের ৩ নভেম্বর ব’ন্দি অবস্থায় ঘা’ত’কের বু’লেটে তিনি নি’হ’ত হন। ব্যক্তিজীবনে অ’ত্যন্ত সৎ ও মেধাবী মানুষ ছিলেন তিনি।